হেযবুত তওহীদের পাবনা জেলা কার্যালয়ে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত জেলা সদস্য সুজন মিয়া হত্যার বিচার ও এঘটনায় জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে সারাদেশের ন্যায় বগুড়া শিবগঞ্জ উপজেলায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেন সংগঠনের জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।

(৩১ আগষ্ট) বুধবার সকাল ১১ টায় বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ থানার সামনে হেযবুত তওহীদ বগুড়া জেলা শাখার সভাপতি হাকীম সামিউল ইসলাম রনি-এর সভাপতিত্বে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবি করেন বগুড়া জেলা হেযবুত তওহীদের কেন্দ্রীয় উপকমিটির শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক মোঃ আশেক মাহমুদ । এসময় তিনি বলেন, হেযবুত তওহীদ দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে নিরলসভাবে সংগ্রাম করে যাচ্ছে। মানবতার কল্যাণে দেশের স্বার্থে। এই মহান কাজ করতে গিয়ে আমরা বারবার আক্রান্ত হয়েছি। সর্বশেষ ২৩ আগস্ট সন্ধ্যায় পাবনা শহরের ৮ নং ওয়ার্ডস্থ জেলা কার্যালয়ে রাতের আঁধারে সম্পূর্ণ বিনা উস্কানিতে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হামলা চালানো হয়েছে। তখন কার্যালয়ের ভেতরে ১৫-১৬ জন সদস্য দলীয় কর্মসূচি নিয়ে কথা বলছিলেন । এ সময় সন্ত্রাসীরা রড কিরিচ, হাশুয়া, দা, কুড়াল ইত্যাদি দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে তাদের কোপে অন্তত দশ জন সদস্য গুরুতর আহত হন। এরমধ্যে দুইজনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে পাবনা জেলা কমিটির সদস্য সুজন মিয়া মারা যান। আজকের এই মানববন্ধন থেকে আমরা এই হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং দ্রুত গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবি জানাই। আমরা দাবি করছি হত্যাকারীদের সকলকে গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় আনুন। এই সন্ত্রাসী ধর্মব্যবসায়ী শ্রেণীটি বগুড়া জেলার সদস্যদেরকেও বিভিন্ন স্থানেসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও হুমকি দিয়ে আসছে। গাবতলীর দুর্গাহাটায় মিথ্যা মামলা দিয়েছে। তিনি আরো বলেন, আজকের এই মানববন্ধন থেকে সুজন হত্যার বিচারের সাথে এই ঘটনার পেছনে যারা ইন্দনদাতা রয়েছে তাদেরকে অবিলম্বে গ্রেপ্তার করাসহ বগুড়াতেও হেযবুত তওহীদ কর্মীদের নিরাপত্তা জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা আকর্ষন করছি । মানববন্ধন সমাবেশে সুজন হত্যা বিচারের দাবিতে আরও বক্তব্য রাখেন, সংগঠনের সাধারণ-সম্পাদক মোঃ রায়হানুল ইসলাম, হেযবুত তওহীদরে বগুড়া জেলা সাবেক সভাপতি আবুল কালাম, খাজা রতন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদীকা ফাতেমা আক্তার, শরিফুল আলম টিপু, বেলাল হোসেন মোঃ শাজাহান আলী, মোখলেছার রহমান, গোলাম মোস্তফা, মো: আলী, সাদিয়া আক্তারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!
%d bloggers like this: