পার্কিং ট্রাকের পিছনে প্রাইভেট কারের ধাক্কা সুনামগঞ্জ -সিলেট মহাসড়কে নিহত ১ আহত ২

 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি::

সুনামগঞ্জ -সিলেট মহাসড়কের দিরাই রাস্তা এলাকায় পার্কিংরত অবস্থায় থাকা নষ্ট অচল ট্রাকের পিছনে ধাক্কা দিয়ে প্রাইভেট কার সড়ক দুর্ঘটনা শিকার হয়৷

 

দুর্ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত অনুমান ১ টা ৩০ মিনিটের দিকে৷ এতে ড্রাইভার সহ আরোহী দুইজন গুরুতর হন৷ এদের মাঝে সেলিম মিয়া (৩৮) কে গুরুতর অবস্থায় সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে তিনি সেখানেই মারা যান৷ নিহত সেলিম মিয়া শান্তিগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ বড়কাপনের আফতর মিয়ার ছেলে৷ মিনি মাইক্রো কার চালক শিবলু (৩০) এর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিলেট রেফার করা হয়৷ অপর গুরুতর আহত অনোয়ার হোসেন (৪৫) কৈতক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন৷

 

জয়কলশ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ি সুনামগঞ্জ সুত্র জানায়, দুর্ঘটনায় কবলিত যাত্রীরা সুনামগঞ্জ জেলা শহর থেকে নিজ বাড়িতে যাওয়ায় পথিমধ্যে সুনামগঞ্জ – সিলেট মহাসড়কের দিরাই রাস্তার পূর্বপাশের বামদিকে পার্কিংরত একটি নষ্ট অচল ট্রাকের পিছনে সজোরে ধাক্কাদিয়ে প্রাইভেট কার দুর্ঘটনায় কবলিত হয়৷ এতে গুরুতর জখম হয়, দক্ষিণ বড়কাপনের আফতাব মিয়ার ছেলে সেলিম মিয়া (৩৮)৷ তিনি রাতেই সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে মারা যান৷ অপরজন শান্তিগঞ্জ উপজেলার, নওয়া গাও এলাকার কমরু মিয়ার ছেলে আনোয়ার হোসেন (৪৫)৷ গাড়ি চালক শিবলু মিয়া (৩০)৷ সে দক্ষিণ সুনামগঞ্জের বেদগুনা গ্রামের মৃত লাল মিয়ার ছেলে৷

 

সড়ক দুর্ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই হাইওয়ে পুলিশ টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে৷ আলামত স্বরূপ ক্ষতিগ্রস্ত মিনি মাইক্রো কার ও ট্রাক জব্দ করা হয়েছে৷

 

প্রত্যক্ষদর্শী গুলজার আহমদ বলেন, রাত অনুমান দেড়টার দিকে হঠাৎ বিকট শব্দের আওয়াজ শুনে দৌড়ে এসে দেখি রাস্তার পূর্বপাশে পার্কিংএ থাকা ট্রাকের পিছনে ধাক্কা দিয়ে মিনি মাইক্রো কার বেশ অনেকটা দুরত্বে পারে রয়েছে৷ পারে আমি সহ অন্যান্যরা তাদেরকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে সিএনজি দিয়ে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেই৷ সড়ক দুর্ঘটনায় খবর পেয়ে রাতেই সুনামগঞ্জ সদর থানা ও শান্তিগঞ্জ থানার পুলিশ এসে ঘটনাস্থলে আসেন৷

 

অপর প্রত্যক্ষদর্শী দিরাই সিএনজি ষ্টেন্ডের ম্যানেজার বলেন, দুর্ঘটনা ঘটার কিছু পরে আমার কাছে খবর আসলে অমি ঘটনাস্থলে আসি এবং দেখি পার্কিং থাকা ট্রাকের পিছনে ধাক্কাদিয়ে কার উল্টে রাস্তার পশ্চিম দিকে পরে রয়েছে৷ আমরা আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে চিকিৎসা জন্য পাঠিয়ে দেই৷ পরে জানতে পাই একজন মারা গেছেন৷

 

আরেক প্রত্যক্ষদর্শী ট্রাকচালক মিজান বলেন, ঘটার সময় দিরাই রাস্তার পূর্বপাশে দুইটি কাবার্ড ভ্যান ও দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ট্রাকগুলো পার্কিং-এ ছিলো৷ এখানে আমরা ট্রাকচালকেরা প্রায় সময় গাড়ি পার্কিং করে খাবার খাই একটু জিরিয়ে নেই৷ তিনি বলে, আমি এখনে রাতের খাবার খাওয়া অবস্থায় ছিলাম৷ এদিকে আওয়াজ শুনে দ্রুত এগিয়ে আসি এবং দেখি রাস্তার একপাশে মিনি মাইক্রো কারটি উল্টে পারে আছে৷ তখন আমরা বেশ কয়েকজন মিলে দুর্ঘটনা কবলিত গাড়িটিকে সোজা করলাম আর তাদের উদ্ধার করে সিএনজি করে হাসপাতালে দিকে পাঠিয়ে দিলাম৷ এদের মাঝে একজনের শরীরে অবস্থা খুববেশি খারাপ ছিলো৷ পরে জানতে পারলাম একজন মারা গেছেন৷

 

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ জেলা ট্রাক পিকাপ কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সদর উপজেলা আঞ্চলিক শাখা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুল জাহান বলেন, সিলেট আঞ্চলিক কমিটির প্রতিনিধি সকালে আমার সাথে যোগাযোগ করে জানিয়েছেন দুর্ঘটনার কথা৷ পরবর্তীতে আমি এসে দুর্ঘটনার স্থান দেখেছি ট্রাকটি নষ্ট অচল অবস্থায় রাস্তার পূর্বপাশে পার্কিংএ রয়েছে৷ এবং সবার কাছথেকে ঘটনার সম্পূর্ণ বিবরণ শুনেছি৷ এখানে আমাদের ট্রাকের কোনো দোষ নেই৷ তাই তিনি কর্তৃপক্ষের নিকট দাবি জানিয়েছেন ট্রাকটিকে কোনোরূপ ঝামেলায় না জড়িয়ে স্বসম্মানে ফিরিয়ে দেওয়ার৷

 

এব্যাপারে জয়কলশ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ি সুনামগঞ্জ এর এস.আই আফাজুল বলেন, সুনামগঞ্জ – সিলেট মহাসড়কের দিরাই রাস্তায় সড়ক দুর্ঘটনার খবর পেয়ে গতকাল রাতেই হাইওয়ে পুলিশ টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং আলামত হিসেবে ক্ষতিগ্রস্ত প্রাইভেট কার ও ট্রাক জব্দ করা হয়েছে এবং আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!
%d bloggers like this: