সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্র রাশিদুল ইসলাম হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্ঘাটন করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

এ ঘটনায়এক নারীসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞসাবাদে রেরিয়ে এসেছে হত্যাকাণ্ডের রহস্য। যাত্রী বেশে অটোরিক্সা, সিএনজি, ইজিবাইক ভাড়া করে সুবিধা জনক স্থানে চালককে হত্যা করে অটোরিক্সা, সিএনজি, ইজিবাইক ছিনতাই করে নিয়ে যাওয়া তাদের উদ্দেশ্য।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিরা হলেন- রায়গঞ্জের লাঙ্গলমোড়া গ্রামের ফরিদুল ইসলাম (৩৪) ও আবুল কালাম (৩৩), গোপিনাথপুর গ্রামের সুখী খাতুন (৪৮) ও সদর উপজেলার পশ্চিম গাড়াদহ গ্রামের হাসেন নবী (৩০)। এর আগে জাহিদুল ও আব্দুল লতিফ নামে আরও দুই যুবককে আটক করে পিবিআই সদস্যরা।

সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সিরাজগঞ্জ পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পুলিশ সুপার রেজাউল করিম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে পিবিআই জানায়, ২০২২ সালের (১৯ মে) সকালে স্কুলছাত্র রাশিদুল ইসলাম তার বড় ভাইয়ের ব্যাটারি চালিত অটোভ্যান নিয়ে রায়গঞ্জ উপজেলার ধামাইনগর বাজারে যাওয়ার পর আর ফিরে আসেনি। এ ঘটনায় তার বড় ভাই তরিকুল ইসলাম রায়গঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

২৪ মে দুপুরে সলঙ্গা থানার ইসলাদি ঘর গ্রামে একটি বাঁশঝাড়ের ভেতর থেকে রাশিদুলের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় থানায় অজ্ঞাতনামা আসামি করে নিহতের ভাই মামলা দায়ের করেন এই মামলাটি পুলিশের পাশাপাশি পিবিআই টিম ছায়া তদন্ত করতে থাকে। মামলার তদন্ত চলাকালে পিবিআই সদস্যরা জাহিদুল ও আব্দুল লতিফ নামে দুই যুবককে আটক করে। পরে তাঁদের তথ্যের ভিত্তিতে অটোভ্যান উদ্ধার করা হয়।

পরবর্তীতে এই মামলা তদন্তের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেন আদালত। তদন্তকালে ৩০ আগস্ট নুরুন হোসেন নবী নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করে পিবিআই। তাঁর দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওই দিন আবুল কালাম ও ফরিদুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়। তারা স্কুলছাত্র রাশিদুল ইসলাম হত্যার সঙ্গে জড়িত বলে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরে তাঁদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পাবনা জেলার আমিনপুর থানার চকভরিয়া গ্রাম থেকে স্কুলছাত্রের ব্যবহৃত মোবাইল উদ্ধার ও ১ সেপ্টেম্বর কথিত প্রেমিকা সুখী খাতুনকে গ্রেফতার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার ব্যক্তিরা জানান, তারা সংঘবদ্ধ চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই দলের সক্রিয় সদস্য। তারা বিভিন্ন সময় স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে যাত্রীবেশে অটোরিক্সা, সিএনজি, ইজিবাইক ভাড়া করে সুবিধাজনক স্থানে চালককে হত্যা করে ছিনতাই করে নিয়ে যান। গত ১৮ মে গ্রেফতার ব্যক্তিরা রায়গঞ্জের ভুইয়াগাতী বাজারে চায়ের দোকানে বসে হত্যার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা মোতাবেক স্কুলছাত্র রাশিদুল ইসলামকে হত্যা করে সলঙ্গা থানার ইসলাদি ঘর গ্রামে একটি বাঁশ ঝাড়ের ভেতর তাঁর মরদেহ রেখে অটোভ্যান নিয়ে পালিয়ে যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!
%d bloggers like this: