রুহুল আমিন,জেলা প্রতিনিধি মানিকগঞ্জ।

একটি ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সাত ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর থানা পুলিশ। গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে সাভারের আশুলিয়া ও সিঙ্গাইর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এসব ডাকাত গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের এই তথ্য জানান থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) সফিকুল ইসলাম মোল্লা।

গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা হলো-সিঙ্গাইর উপজেলার খৈয়ামুরি গ্রামের সোনা মিয়ার ছেলে মহিদুর ওরফে শামীম (৩০), একই উপজেলার সোনাটেংরা গ্রামের আদম আলীর ছেলে মোঃ মোশারফ মোল্লা ওরফে মোসা (২৭), ওয়াইজনগর গ্রামের মৃত সাদেক খানের ছেলে মোঃ কুদ্দুস খা (৫০), বকচর গ্রামের তমেজ উদ্দিনের ছেলে ইসমাইল দেওয়ান (২৮), ঢাকার সাভার উপজেলার চকবাড়ি গ্রামের মেজবানের ছেলে মোঃ আরমান (৩৫), ব্রাহ্মবাড়ীয়া জেলার নবীনগর উপজেলার ছলিমগঞ্জ বাড়াইল গ্রামের মৃত ইদন মিয়ার ছেলে মোঃ মোমেন মিয়া (২৮) ও ঝালকাঠি গ্রামের রাজাপুর উপজেলার সাংগুর গ্রামের মৃত আজাহার সরদারের ছেলে মোঃ মিরাজ সরদার (৩৬)।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ওসি সফিকুল ইসলাম মোল্যা আরো জানান, গত ২২ সেপ্টেম্বর রাতে সিঙ্গাইর উপজেলার গোবিন্দল গ্রামের মহিবুর রহমান, আঃ কাদের, আবু ছাহেদ ও আবু জরের বাড়িতে ডাকাতি হয়। ডাকাতরা নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও তিনটি মুঠোফোন সেটসহ মোট ৬ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

এঘটনায় ওই দিনই অজ্ঞাত পরিচয়ের ১০-১২ জনকে আসামী করে থানায় একটি ডাকাতি মামলা করেন মহিবুর রহমান। এই মামলার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে মহিদুর ওরফে শামীমকে গ্রেফতার করে ২৯ সেপ্টেম্বর আদালতে পাঠায় পুলিশ। মহিদুর ওই ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। সেই সঙ্গে সে ডাকাতির সাথে জড়িত তার আরো ৮ সহযোগীর নাম প্রকাশ করে। তার দেওয়া তথ্যমতে এদের মধ্যে ৬ ডাকাতকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় নগদ টাকাসহ লুন্ঠিত মালামালের কিছু অংশ।

থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) সফিকুল ইসলাম মোল্যা বলেন, গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। ১০ দিনের রিমা- চেয়ে তাদের শুক্রবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়। অন্যান্য চোর-ডাকাতদের ধরতে সাড়াশি অভিযান চলছে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই মাত্র পাওয়া খবর

চাকমারকুল মিয়াজীপাড়ায় মিনিবার ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা সম্পন্ন। মোহাম্মদ নোমান রামু কক্সবাজার প্রতিনিধি। শুক্রবার (২৭ জানুয়ারী ,২০২৩ইং) রাত ৮.০০ টায় রামু উপজেলার চাকমারকুল ইউনিয়নের মিয়াজীপাড়ায় ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান ব্যাপক দর্শক সমাগমের মধ্য দিয়ে বহুল প্রশংসিত এবং প্রত্যাশিত সী-গ্রীন স্পোর্টিং ক্লাব কর্তৃক আয়োজিত মিনি বার ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০২২-২৩ এর ফাইনালখেলা সম্পন্ন হয়েছে। উক্ত ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন কলঘর বাজার সিনিয়র ফুটবল দল বনাম মালুম ঘাট ফুটবল দল। মাঠে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে মালুম ঘাট ফুটবল দলকে ১-০ গোলে পরাজিত করে কলঘর বাজার সিনিয়র ফুটবল দল চ্যাম্পিয়ন হয়।উক্ত খেলায় সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন কলঘর বাজার সিনিয়র ফুটবল দলের খেলোয়াড় আয়াত উল্লাহ। খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে ট্রফি সহ নগদ ৫০,০০০ টাকা,পরাজিতদের হাতে ট্রফিসহ নগদ ২০০০০ টাকা পুরস্কার তুলে দেন চাকমারকুল ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জনাব মুফিদুল আলম (মুফিদ)। সী-গ্রীন স্পোর্টিং ক্লাবের উপদেষ্টা জনাব সরওয়ার আলমের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাকমারকুল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মেম্বার জনাব সাহাব উদ্দিন, ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার জনাব বেলাল উদ্দীন শাহীন, ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার জনাব নুরুল ইসলাম নুরু ১,২,৩ ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার জনান্বা আল মর্জিনা, ৪,৫,৬নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার গুলজার বেগম ৭,৮,৯১নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার মরিয়ম বেগম,সমাজ সেবক আমির হোসেন সিকদার, যুব নেতা সালাহ উদ্দীন জনাব সাইফুল ইসলামসহ প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুফিদুল আলম বলেন, যুব সমাজকে খেলাধূলার প্রতি আগ্রহী করে তাদেরকে রক্ষা করতে হবে। যুবসমাজকে রক্ষা করতে পারে একমাত্র ক্রীড়া জগত। তাই বেশি বেশি করে খেলাধূলার আয়োজন করতে হবে। উক্ত টুর্ণামেন্টের পরিচালনায় ছিলেন জানে আলম,ন্হুমায়ুন বিন কাসেম হিরু,জামাল হোসেন,কায়সার,জামশেদ,আশেক,হামিদুর রহমান,মনছুর,সোহেল,মনজুর,জাহেদুল ইসলাম,নুরুসহ প্রমুখ

Don`t copy text!
%d bloggers like this: