স্টাফ রিপোর্টারঃ আজ ৭ আগস্ট ২০২২ইং রোজ রবিবার বিকাল ৫ টায় ২২/১, তোপখানা রোডস্থ বাংলাদেশ শিশু কল্যাণ পরিষদ ভবনের কনফারেন্স হলরুমে জাতীয় মানবাধিকার সমিতির উদ্যোগে সড়ক দুর্ঘটনা ও রাষ্ট্রের নীতি ব্যবস্থা করণীয় নাগরিক সংলাপ এবং বাংলাদেশ জ্ঞান সৃজনশীল প্রকাশক, বিশিষ্ট সাংবাদিক মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার গত ২৫ জুলাই সোমবার রাত ১১.৩০টায় রাজধানীর সায়েন্স ল্যাবরেটরী মোড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসাধীন। তাঁর রোগমুক্তি কামনায় দোয়া ও আলোচনা সভায় জাতীয় নেতৃবৃন্দ বলেন, সর্বত্র অস্থিরতা বিরাজমান। সড়ক এখন মৃত্যুর ফাঁদে পরিণত হয়েছে। উন্নয়নের নামে সারাদেশে সড়কগুলো এখন যাচ্ছেতাই অবস্থায় চলছে। অন্যদিকে লোডশেডিং, তেলের অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধির ফলে পরিবহনসহ সকল ক্ষেত্রে ভাড়া বৃদ্ধি হয়েছে, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য দিনেদিনে লাগামহীন হয়ে পড়েছে। সাধারণ মানুষ মানবেতর জীবনযাপন করছে। সড়ক দুর্ঘটনায় অনেক পরিবার এখন দিশেহারা ও সর্বহারা হয়ে অসহায়ভাবে বেঁচে আছে। একটি দুর্ঘটনা একটি পরিবারের কান্না। এই বিষয়টি এখন মুখে মুখে উচ্চারণ করলে হবে না। এটি উপলব্ধি করে রাষ্ট্রকে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

সংগঠনের চেয়ারম্যান ও এনডিপি’র মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএলডিপি’র চেয়ারম্যান, সাবেক মন্ত্রী এম. নাজিম উদ্দিন আল আজাদ।

প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন বীরমুক্তিযোদ্ধা বিচারপতি ড. মো. আবু তারিক।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ অটোরিক্সা হালকাযান পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসাইন, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভূইয়া, যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান হামদুল্লাহ আল মেহেদী, জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি এম.এ জলিল, বাংলাদেশ মুঠোফোন এসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ, এবি পার্টির সিনিয়র যুগ্ম সদস্য সচিব আনোয়ার সাদাত টুটুল, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠক প্রীতি শর্মা, বিশিষ্ট সংগঠক রোকন উদ্দিন পাঠান।

মুখ্য আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন গীতিকার, সুরকার কবি প্রাকৃতজ শামীমরুমি টিটন।

সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ জ্ঞান সৃজনশীল প্রকাশক, বিশিষ্ট সাংবাদিক মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার গত ২৫ জুলাই সোমবার রাত ১১.৩০টায় রাজধানীর সায়েন্স ল্যাবরেটরী মোড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। এখনো সে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। এখনো খুঁজে পাচ্ছে না সে কি দুর্ঘটনায় আহত নাকি পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করার উদ্দেশ্যে হামলা করা হয়েছে। প্রত্যেকটি গাড়ির ইন্স্যুরেন্স থাকার পাশাপাশি এখন প্রত্যেকটি যাত্রীরও ইন্সুরেন্স রাষ্ট্রীয়ভাবে করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছি। গাড়ী দুর্ঘটনায় কবলিত হলে মালিক পক্ষ ইন্সুরেন্স কোম্পানী থেকে প্রাপ্ত অর্থ পেলেও দুর্ঘটনার শিকার যাত্রীর চিকিৎসার খোঁজ-খবর কেউ নেয় না। ফলে চিকিৎসা করাতে গেলেও তার পরিবারকে নতুনভাবে আর্থিক সংকটে পড়তে হয়। এখান থেকে নিস্কৃতি পাওয়ার জন্য এখনই জাতীয়ভাবে পরিকল্পনা করতে হবে। যেটি সময়ের দাবি। আলোচনা শেষে আহত অলিদ সিদ্দিকীর জন্য বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠান শেষে নেতৃবৃন্দ আহত মো. অলিদ সিদ্দিকী তালুকদারকে দেখতে যান এবং তার চিকিৎসার খোঁজখবর নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!
%d bloggers like this: