সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম বীরগাও ইউনিয়নের টাইলা গ্রামে মাদক সেবনের টাকার জন্য আপন বড়ভাইকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করল ছোট ভাই। ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৭ মে ২০২২ইং রাতে ইউনিয়নের পূর্ব টাইলা গ্রামে বড় ভাই মনু মিয়ার নিজ বসত ঘরে । এ ঘটনায় আহত মনু মিয়ার ছেলে মো: মাহমুদ হোসাইন সোহম বাদী হয়ে ঘটনার পরের দিন ২৮ মে আপন চাচা তোফায়েল মিয়া ও চাচী মোছা: আফিয়া বেগমকে আসামী করে শান্তিগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, টাইলা গ্রামের বাসিন্দা মৃত চমক আলীর পুত্র তোফায়েল মিয়া(৪৫) একজন মাদক সেবনকারী। বিভিন্ন সময় মাদক কিনে সেবন করার টাকার জন্য আপন বড়ভাই মো: মনু মিয়াকে গালিগালাজ করে আসছিলেন। প্রতিদিন সন্ধ্যার পর মাদকের টাকার জন্য অব্যাহত চাপ প্রয়োগ করা জোর করে বসত ঘর থেকে টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে প্রায় সময়ই। ঘটনার দিন রাতে তোফায়েল মিয়া বড়ভাই মনু মিয়াকে টাকা দিতে বললে মনু মিয়া টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে মাদক সেবনকারী তোফায়েল মিয়া বড় ভাই মনু মিয়ার ঘরে প্রবেশ করে লোহার রড দিয়ে তার শরীরের বিভিন্নস্থানে আঘাত করে এবং লোহার রড দিয়ে মাথায় আঘাত করলে তিনি অঞ্জান হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে প্রচুর রক্তখনন হয়। তখন হামলাকারী তোফায়েল মিয়া বড়ভাই মনু মিয়ার ঘরের চকেসের ড্রয়ার ভেঙ্গে ৬০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় । এসময় মনু মিয়ার সু-চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে আহত অবস্থায় মনু মিয়াকে উদ্ধার করে স্থানীয় দিরাই উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্রে এনে ভর্তি করেন। ঘটনার ১২দিন পেরিয়ে গেলও এখন পর্যন্ত থানা পুলিশ সঠিক কোন প্রদক্ষেপ না নেওয়ায় অবশেষে ন্যায় বিচারের সার্থে সাংবাদিকদের দারস্থ হন আহত পরিবারের লোকজন।

 

এ ব্যাপারে অভিযোগকারী মো: মাহমুদ হোসাইন সোহম জানান, আমার চাচা একজন মাদক সেবনকারী প্রতি নিয়ত টাকার জন্য আমার বাবাকে গালিগালাজ ও মারধর করে । আমি থানায় অভিযোগ দিয়েছি কিন্তু এখন পর্যন্ত থানা পুলিশ অভিযোগটি আমলে নেয়নি। আমার চাচা উল্টো আমাদেরকে আসামী করে আদালতে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। আমরা প্রশাসনের কাছে ন্যায় বিচার প্রার্থী।

 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত তোফায়েল মিয়ার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার ফোনটি বন্ধ বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

 

এ ব্যাপারে শান্তিগঞ্জ থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা এ এস আই আব্দুল অদুদ অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ##

আমির হোসেন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

Leave a Reply

Your email address will not be published.