মাসুদ আলী পুলক রাজশাহী ব্যুরোঃ-
র্র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরণের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। র‍্যাব জঙ্গি, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, মাদক, অস্ত্রধারী অপরাধী, ভেজাল পণ্য, ছিনতাইকারী, প্রতারক ও হ্যাকারদের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে আসছে।
এরই ধারাবাহিকতায় ব্যাব-৫, রাজশাহীর সিপিএসসি, মোল্লাপাড়া ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল ০৭ অক্টোবর ২০২২ তারিখ ভোর ০৫.৪৫ ঘটিকায় রাজশাহী মহানগরীর কাটাখালী থানাধীন কাপাশিয়া পাহাড়পুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে (ক) ০৪টি বিদেশী রিভলবার, (খ) ০৩ টি বিদেশী পিস্তল, (গ) ০৪ টি ম্যাগজিন, (ঘ) ০৮ রাউন্ড তাজা গুলি, (৩) ০৪ রাউন্ড গুলির খোসা, (চ) ০১ কেজি ১০০ গ্রাম গান পাউডার, (ছ) ৭৫০ গ্রাম পাথর, (জ) স্প্রীন্টার হিসেবে ব্যবহৃত লোহার বল ও তারকাটা, (ঝ) ০২ টি মোবাইল, (ঞ) ০৪ টি সীমকার্ডসহ ০১ জন শীর্ষ অস্ত্র ব্যবসায়ী ১। মোঃ আতিকুর রহমান @ জাতিক (৩৫), পিতা-মোঃ আব্দুল মতিন, সাং- কাপাশিয়া পাহাড়পুর (১নং ওয়ার্ড) এবং তার সহযোগী ২। মোঃ শাহীন আলী (২৫). পিতা-ঝড়ু, সাং-চরকাজলা (২৮নং ওয়ার্ড), ৩। মোঃ শহিদুল (২৬), পিতা-মোঃ নেছার আলী, সাং-ধরমপুর পূর্বপাড়া (২৮নং ওয়ার্ড), সর্ব থানা-মতিহার, রাজশাহী মহানগরগন’কে গ্রেফতার করা হয়।
র‍্যাব-৫ এর গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, রাজশাহীতে একটি বড় অস্ত্রের চালান সীমান্তবর্তী চর এলাকা হতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী এলাকায় এসেছে। এ তথ্য পাওয়ার সাথে সাথে র‍্যাব-৫ এর সিপিএসসি টিম তাদের গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করে। এর ধারাবাহিকতায় সিপিএসসির একটি চৌকস দল কাপাশিয়া পাহাড়পুর এলাকায় চিহ্নিত সন্ত্রাসী দলের সক্রীয় সদস্য আতিকের বাড়ীতে অপারেশন পরিচালনা করে এবং সন্ত্রাসী আতিককে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। আতিক অবৈধ অস্ত্রগুলো তার মুরগীর খামারের পার্শ্বে একটি ছোট ঘরে রেখেছিল। উক্ত ঘরটির ভিতর দিক দিয়ে কালো কাপড় দিয়ে ঢাকা ছিল। পরবর্তীতে আসামী নিজের হাতে অস্ত্র গুলো বের করে দেয়। একই সাথে তার মুরগীর খামারে রাখা ককটেল বানানোর বিভিন্ন উপকরণ গুলোও বের করে দেয়।ধৃত আসামীগনদের জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায় যে, ধৃত আসামীগন সীমান্তবর্তী অজ্ঞাত স্থান হতে মোঃ তানজিম (২৭) ও মোঃ আব্দুর রহিম (২৮) দ্বয়ের মাধ্যমে অস্ত্র-গুলি ও বিস্ফোরক দ্রব্যাদি সংগ্রহ করে স্বাধীনতা বিরোধী চক্রকে শক্তিশালী। করার লক্ষ্যে ঐ সকল চক্রের বিভিন্ন কর্তাব্যক্তিদেরকে এসকল অস্ত্র সরবরাহ করত। এদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে রাজশাহী তথা বাংলাদেশের শান্ত-শৃঙ্খলা বিনষ্ট করা।সাম্প্রতিককালে উত্তরবঙ্গে এটিই অবৈধ অস্ত্রের সবচেয়ে বড় চালান যা র‍্যাব কর্তৃক আটক করা হয়েছে। এরা অত্র এলাকার চিহ্নিত শীর্ষ অস্ত্র ব্যবসায়ী। এদের গ্রেপ্তারের মাধ্যমে অবৈধ অস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্যাদির বিরুদ্ধে র‍্যাব Zero Tolerance” নীতি অনুসরন করে তা আবার সকলকে মনে করিয়ে দিতে চায়।
উক্ত আসামীর বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে রাজশাহী মহানগরীর কাটাখালী থানায় মামলা রুজুর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Don`t copy text!
%d bloggers like this: