শেখ রনজু আহাম্মেদ, রাজবাড়ী প্রতিনিধি ॥
আগামীকাল ১৭ অক্টোবর রাজবাড়ী জেলা পরিষদ নির্বাচন। এ নির্বাচনে প্রচার-প্রচারনা শনিবার মধ্যে রাত থেকে শেষ হয়েছে। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বান্দতা করলেও ভোটের লড়াই হবে আওয়ামী লীগ মনোনীত শফিকুল মোরশেদ আরুজ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী দীপক কুমার কুন্ডুর মধ্যে। এছাড়া নির্বাচনে জেলার ৫ উপজেলায় ৩২ জন সদস্য ও ৮ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য প্রতিদ্বন্দীতা করছেন। ইতিমধ্যে উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় এলাকাসহ বিভিন্ন স্থানে ছেয়ে গেছে প্রার্থীদের পোস্টার ও বিলবোর্ডে। এখন জেলার সর্বত্রই আলোচনার কে হচ্ছেন জেলা পরিষদের নতুন চেয়ারম্যান ও সদস্য। তবে ভোটারদের অভিমত লড়াইয়ে এগিয়ে রয়েছেন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী দীপক কুন্ডু এগিয়ে রয়েছেন।
জানাগেছে, চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত একেএম শফিকুল মোরশেদ আরুজ (তালগাছ), স্বতন্ত্র প্রার্থী পাংশা পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি দীপক কুমার কুন্ডু (মোটর সাইকেল) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ও কালুখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলিউজ্জামান চৌধুরী টিটোর ভাই ইমামুজ্জামান চৌধুরী (আনারস) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন।
কয়েকজন ভোটার বলেন, নির্বাচনে প্রচার-প্রচারনা শেষ। দু,জন প্রার্থী ব্যাপক ভাবে প্রচারনা চালিয়েছেন। তবে আমরা যোগ্য ও ভালো মানুষকে ভোট দিবো। আমরা কোন মিথ্যা প্রতিশ্রুতিতে বিশ্বাসী নয়। অনেককেই নেতৃত্ব দিতে দেখেছি। কিন্তু নির্বাচিত হওয়ার পর সব প্রতিশ্রুতি ভুলে যায়। দীপক কুন্ডু এই প্রথম নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। তার অবস্থান ভালো মনে হচ্ছে। তিনি এগিয়ে রয়েছেন।
স্বতন্ত্র প্রার্থী দীপক কুমার কুন্ডু বলেন, শতভাগ আশাবাদী মোটর সাইকেল বিপুল ভোটে বিজয়ী হবে। নির্বাচিত হলে সবাইকে নিয়ে একটি সমৃদ্ধশালী জেলা পরিষদ গঠন করবো। সুন্দর ও সুষ্টু নির্বাচনের প্রত্যাশা করছি।
জেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানাগেছে, রাজবাড়ী জেলা পরিষদ নির্বাচনে জেলার ৫ টি উপজেলা, ৩ টি পৌরসভা ও ৪২ টি ইউনিয়নের ৫৯৮ জন জনপ্রতিনিধি ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। ৫টি উপজেলাতেই ভোট কেন্দ্রে ভোট হবে ইভিএমএ। রবিবার সকালে ৫টি উপজেলাতেই নির্বাচনী সামগ্রী পৌছে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Don`t copy text!
%d bloggers like this: