বগুড়া সদর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক ইফতারুল ইসলাম মামুন বলেছেন, ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর ডাকে যারা বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিতে যুদ্ধে গিয়েছিল, পরবর্তীতে সেই সোনার ছেলেরাই যুবলীগ করেছে।আপনি কি পেলেন সেই হিসাব করলে চলবে না। আপনি দেশ ও সমাজকে কি দিলেন সেটা চিন্তা করাই হচ্ছে যুবলীগের রাজনীতির আদর্শ।যুবলীগের নেতকর্মীরা যেন তাদের নিজ নিজ জায়গায় রোল মডেল হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

( ৩১শে আগষ্ট ২০২২ইং) বুধবার বগুড়া সদর উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে জাতীর জনক বঙ্গ বন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদৎ বার্ষিকীর শোক রেলি শেষে সদরের নামুজা ইউনিয়নের সিংগারজান বন্দরে নামুজা ও গোকুল ইউনিয়ন যুবলীগ নেতৃবৃন্দের সাথে নৈশ ভোজে অংশ গ্রহন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

ইফতারুল ইসলাম মামুন আরো বলেন, ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে শেখ মনি যুবলীগ গঠন করেন একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে।সেই লক্ষ্য হচ্ছে দেশ বিনির্মাণে যুবকদের সক্রিয় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা। সেসময় বৈজ্ঞানিক সমাজতন্ত্রের নামে নতুন দল গঠন ও তখনকার তরুণদের বিভ্রান্ত করার একটি অপচেষ্টা চালান ছিল।আমাদের অনেক নেতাকর্মী তখন পথভ্রষ্ট হয়ে জাচ্ছিল, কিন্তু ওই সময় মনি ভাইয়ের নেতৃত্বে যুবলীগ শক্ত হাতে তা প্রতিহত করেছিল।কাজেই যুবলীগের ইতিহাস একদিনের নয়, বরং দেশের ইতিহাসের সাথে তা ওতোপ্রতভাবে জড়িত।কাজেই যুবলীগ করতে হলে সৎ, পরিশ্রমী ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, ৭৫ এ বঙ্গবন্ধু, শেখ মনি ও তার পরিবারকে হত্যা করতে যে দেশি ও আন্তর্জাতিক চক্র কাজ করেছিল তারা আজও সুযোগের অপেক্ষায়।৭৫ এ যে গণতন্ত্রকে গলা টিপে হত্যা করা হয়, জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনার হাত ধরে তা আবার ফিরে এসেছে।সেই গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে হলে দেশের প্রতিটি জায়গায় সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। যদি যুবলীগ, আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকে তবে বাংলাদেশে কোনো শক্তি নেই যে আওয়ামী লীগকে পরাজিত করবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন গোকুল ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম সাজু, নিশিন্দারা ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক রিজু, রাজাপুর ইউনিয়ন যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক লিটন হোসেন,গোকুল ৩ নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি শাফিউল ইসলাম স্বপন, মেহেদী হাসান বাবু, আতিকুর রহমান রাখু, রিজাউল, বাবু, মিটন, মিটু, পিলু, সাগর, আরিফুল, নজরুল পূমখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই মাত্র পাওয়া খবর

চাকমারকুল মিয়াজীপাড়ায় মিনিবার ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা সম্পন্ন। মোহাম্মদ নোমান রামু কক্সবাজার প্রতিনিধি। শুক্রবার (২৭ জানুয়ারী ,২০২৩ইং) রাত ৮.০০ টায় রামু উপজেলার চাকমারকুল ইউনিয়নের মিয়াজীপাড়ায় ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান ব্যাপক দর্শক সমাগমের মধ্য দিয়ে বহুল প্রশংসিত এবং প্রত্যাশিত সী-গ্রীন স্পোর্টিং ক্লাব কর্তৃক আয়োজিত মিনি বার ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০২২-২৩ এর ফাইনালখেলা সম্পন্ন হয়েছে। উক্ত ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন কলঘর বাজার সিনিয়র ফুটবল দল বনাম মালুম ঘাট ফুটবল দল। মাঠে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে মালুম ঘাট ফুটবল দলকে ১-০ গোলে পরাজিত করে কলঘর বাজার সিনিয়র ফুটবল দল চ্যাম্পিয়ন হয়।উক্ত খেলায় সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন কলঘর বাজার সিনিয়র ফুটবল দলের খেলোয়াড় আয়াত উল্লাহ। খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে ট্রফি সহ নগদ ৫০,০০০ টাকা,পরাজিতদের হাতে ট্রফিসহ নগদ ২০০০০ টাকা পুরস্কার তুলে দেন চাকমারকুল ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জনাব মুফিদুল আলম (মুফিদ)। সী-গ্রীন স্পোর্টিং ক্লাবের উপদেষ্টা জনাব সরওয়ার আলমের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাকমারকুল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মেম্বার জনাব সাহাব উদ্দিন, ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার জনাব বেলাল উদ্দীন শাহীন, ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার জনাব নুরুল ইসলাম নুরু ১,২,৩ ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার জনান্বা আল মর্জিনা, ৪,৫,৬নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার গুলজার বেগম ৭,৮,৯১নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার মরিয়ম বেগম,সমাজ সেবক আমির হোসেন সিকদার, যুব নেতা সালাহ উদ্দীন জনাব সাইফুল ইসলামসহ প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুফিদুল আলম বলেন, যুব সমাজকে খেলাধূলার প্রতি আগ্রহী করে তাদেরকে রক্ষা করতে হবে। যুবসমাজকে রক্ষা করতে পারে একমাত্র ক্রীড়া জগত। তাই বেশি বেশি করে খেলাধূলার আয়োজন করতে হবে। উক্ত টুর্ণামেন্টের পরিচালনায় ছিলেন জানে আলম,ন্হুমায়ুন বিন কাসেম হিরু,জামাল হোসেন,কায়সার,জামশেদ,আশেক,হামিদুর রহমান,মনছুর,সোহেল,মনজুর,জাহেদুল ইসলাম,নুরুসহ প্রমুখ

Don`t copy text!
%d bloggers like this: