———————————————————হাকিকুল ইসলাম খোকন ,যুক্তরাষ্ট্র সিনিয়র প্রতিনিধিঃ
যুক্তরাষ্ট্রের মিসৌরির সেন্ট লুইসের একটি হাইস্কুলে বন্দুকধারীর গুলিতে তিনজন নিহত এবং সাতজন আহত হয়েছেন।

সোমবার ২৪ অক্টোবর স্থানীয় সময় ৯টায় বন্দুকধারীরা সেন্ট্রাল ভিজ্যুয়াল অ্যান্ড পারফর্মিং আর্টস হাই স্কুলে প্রবেশ করে।

বিবিসি বলছে, স্কুল ভবনের দরজা তালাবদ্ধ ছিল এবং সন্দেহভাজন ওই বন্দুকধারী সেখানে কীভাবে প্রবেশ করে তা তাৎক্ষণিকভাবে স্পষ্ট নয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, হামলা শুরুর পর একপর্যায়ে বন্দুকধারীর হাতে থাকা অস্ত্রটি জ্যাম বা আটকে যাওয়ার পর অনেকের প্রাণ রক্ষা পায়।

সেন্ট লুইস পাবলিক স্কুল বলছে, পুলিশ বন্দুকধারীকে “দ্রুত থামিয়েছে”। সন্দেহভাজন, একজন ১৯ বছর বয়সী সাবেক ছাত্র হিসাবে পুলিশ চিহ্নিত করেছে।ঘটরা স্থলে পুলিশের সাথে গুলি বিনিময় এবং পরে নিজের আঘাতে মারা যায়।

প্রায় ৪০০ শিক্ষার্থীর স্কুলে হামলার জন্য তার উদ্দেশ্য স্পষ্ট নয়।

পুলিশ স্থানীয় জানিয়েছে, একটি কিশোরী মেয়েকে স্কুলের ভিতরে মৃত পাওয়া গেছে। আর একজন মহিলাকে হাসপাতালে নেওয়া পর মারা গেছেন।

স্থানীয় মিডিয়া অনুসারে, আহত ৭ জন – ৩ জন মেয়ে এবং ৪ জন ছেলে।

শহরের পুলিশ কমিশনার মাইকেল স্যাকের মতে, অফিসাররা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর আক্রমণকারীর কাছে ‘লম্বা বন্দুক’ দেখতে পান। এছাড়া হামলার আতঙ্কে অনেক শিক্ষার্থীকে স্কুল থেকে পালিয়েও যেতে দেখেন তারা।আহতদের মধ্যে তিনহন ছাত্রী ও চারজন ছাত্র। তাদের আঘাত গুরুতর নয়। স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো বলছে, আহতদের কারো শারীরিক পরিস্থিতির কারণে প্রাণ নিয়ে সংশয় নেই।

শহরটির পুলিশ কমিশনার মাইকেল স্যাক জানান, হামলার খবরে শিক্ষার্থীরা আতঙ্কে ছোটাছুটি করতে থাকে। পরিস্থিতি দেখে স্কুলের কর্মীরা দ্রুত পুলিশকে বিষয়টি জানান। বন্দুকধারীর কাছে শতাধিক বুলেট ছিল। তার কাছে যা প্রায় এক ডজন উচ্চ-ক্ষমতার ম্যাগাজিনে সেসব সাজানো ছিল। পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারতো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Don`t copy text!
%d bloggers like this: