একসময়ের তুমুল জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। সড়ক দুর্ঘটনায় স্ত্রী মারা যাওয়ার পর তিনি ‘নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন’ প্রতিষ্ঠা করে হন সেটির চেয়ারম্যান। হয়েছেন ব্যবসায়ী। সময়ের পরিক্রমায় চলতি বছরে হয়েছেন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতিও। এবার তিনি হতে চান মন্ত্রী। শুধু মন্ত্রিত্ব নন, চান পূর্ণ ক্ষমতাও।

 

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে তরুণ নির্মাতা সাইদুল ইসলাম রানা পরিচালিত ‘বীরত্ব’ সিনেমার বিশেষ প্রদর্শনীতে হাজির ছিলেন ইলিয়াস কাঞ্চন। সিনেমার বিরতির সময় সেখানেই সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে নিজের এই ইচ্ছার কথা জানান ‘বেদের মেয়ে জোছনা খ্যাত’ নায়ক এবং শিল্পীদের বর্তমান অভিভাবক।

 

ইলিয়াস কাঞ্চনের কাছে সাংবাদিকদের প্রশ্ন ছিল, আপনি এমপি হতে চান কিনা? এর জবাবে অভিনেতা বলেন, ‘এমপি হয়ে আমি কী করতে পারব? আমাকে বহুবার বলা হয়েছে এমপি হওয়ার জন্য। কিন্তু আমি শুধু এমপি হওয়ার জন্য রাজনীতিতে যুক্ত হতে চাই না। হলে মন্ত্রী হবো। শুধু মন্ত্রী করলেই হবে না, আমাকে পূর্ণ ক্ষমতাও দিতে হবে।’

 

ইলিয়াস কাঞ্চন দাবি করেন, ‘বর্তমান সরকারে বহু মন্ত্রী আছে, যারা পূর্ণ ক্ষমতা ব্যবহার করতে পারেন না।’ সে কারণে অভিনেতা বলেন, ‘আমাকে মন্ত্রিত্ব দিতে চাইলে সঙ্গে পূর্ণ ক্ষমতা ব্যবহারের সুযোগও দিতে হবে। কারণ, জনপ্রতিনিধি হয়ে যদি মানুষের চাওয়া-পাওয়া, আকাঙ্ক্ষা পূরণ করতে না পারি, তাহলে সে পথে গিয়ে লাভ কী।’

 

এ সময় সেখানে ইলিয়াস কাঞ্চন ছাড়াও হাজির ছিলেন পরিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান, মহাসচিব শাহীন সুমন, সাবেক মহাসচিব মুশফিকুর রহমান গুলজার, অভিনেতা কাবিলাসহ অনেকে। ‘বীরত্ব’র কলাকুশলীদের মধ্যে ছিলেন চিত্রনায়ক ইমন, চিত্রনায়িকা নিপুণ, জেসমিন এবং নির্মাতা সাইদুল ইসলাম রানা।

 

তবে শুধু মন্ত্রী হওয়ার ইচ্ছার কথা নয়, ‘বীরত্ব’ সিনেমাটি দেখে সেটিরও বেশ প্রশংসা করেন ইলিয়াস কাঞ্চন। এ সিনেমার গল্প, শিল্পীদের অভিনয় তার ভালো লেগেছে বলে জানান। বিশেষ করে ‘বীরত্ব’র প্রধান চরিত্র চিত্রনায়ক ইমন এবং শিশুশিল্পী মুনতাহা এমেলিয়ার দারুণ প্রশংসা করেন কাঞ্চন। তিনি হলে গিয়ে সিনেমাটি দেখার আহ্বানও জানান।

 

গত জানুয়ারিতে শিল্পী সমিতির সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে প্রায় প্রতিটি সিনেমার মহরত অথবা বিশেষ প্রদর্শনীতে হাজির থাকেন ইলিয়াস কাঞ্চন। সেখানে তিনি চলচ্চিত্রের উন্নয়নে নানা দিকনির্দেশনা দেন। পরিচালক-প্রযোজকদের ভালো মানের সিনেমা বানানোর আহ্বান জানান। মোটকথা, চলচ্চিত্রের সোনালি দিন ফেরাতে তিনি বদ্ধপরিকর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই মাত্র পাওয়া খবর

Don`t copy text!
%d bloggers like this: