বগুড়া সদর গোকুল ইউনিয়নের ধাওয়াকোলা গ্রামে কবলাকৃত জমি পত্তনের নামে জবর দখল থানায় অভিযোগ।

বগুড়া সদর থানা সূত্রে জানা গেছে সদরের ধাওয়াকোলা গ্রামের মৃত খাতেমন বিবি এলকার মৃত চান্দার নিকট থেকে ৮৫২ দাগে ২২এর কাতে ২৮/৮/৯৭ ইং তারিখে ১০ শতাংশ জমি কবলা ক্রয় করেন, যার দলিল নং ১৪৪৬৩।
সে কারনে বাদীর পিতা মৃত ছোলায়মান আলী জমির ওয়ারিশ হিসাবে তার মায়ের নিকট থেকে প্রাপ্ত হয়। সে হিসাবে ছোলায়মান আলী জমিটি তার সন্তান লুৎফর রহমান ও পুত্রবধু শেফালীর নিকট কবলা বিক্রি করেন । বাদী লুৎফর রহমান জানান সে থেকে আমরা জমিটি ভোগ দখল করে আসেতেছি। জমিটি নার্সারী করার নামে একই এলাকার লালো ভান্ডারীর পুত্র দুদু ভান্ডারী বছরে ১৫ হাজার টাকা দেওয়ার চুক্তিতে পত্তন নিয়ে কয়েক মাস পরই সে জমি নিজেদের বলে দাবী করে জবর দখল করে। সে বলে ঐ জমিটি তার নানার জমি , প্রকৃত পক্ষে তার নানা জমিটি আমাদের কাছে বিক্রি করেছে। তাহলে তার তো আর জমি থাকে না।তারা জবর দখল করেছে। সদর থানা পুলিশের এস আই ও গোকুল ইউনিয়নের বিট অফিসার বেদার উদ্দিন বলেন, জমি জমা সংক্রান্ত বিষয়টি আইনগত বিষয়। জমির প্রকৃত কাগজ যার থাকবে সেই তো প্রকৃত মালিক হওয়ার কথা। আমি তদন্ত করে কোর্টে প্রতিবেদন পঠাব। জমির দাবী দার মৃত লালো ভান্ডারীর পুত্র দুদু ভান্ডারীর সাথে কথা বললে তিনি জানান আমরা নানার ওয়ারিশ হিসাবে জমির দাবিদার, তবে যার কাগজ সঠিক হবে সেই জমির মালিক। আমাদের কাগজ ঠিক না হলে আমরা জমি ছেড়ে দিব। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বাদী লুৎফর রহমান প্রশসনের নিকট দাবী জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Don`t copy text!
%d bloggers like this: