বগুড়ার শিবগঞ্জে মোবাইল ফোনে গেম খেলা নিয়ে ছোট ভাইয়ের উপর অভিমান করে বড় ভাই মেহেদী হাসান(১৩) গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকাল ৯টায় ( ১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে শিবগঞ্জ উপজেলার বিহার ইউনিয়নের নাটমরিচাই গ্রামে। নিহত মেহেদী হাসান (১৩) নাটমরিচাই গ্রামের আব্দুর রহিম এর ছেলে ও মোলামগাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র। খবর পেয়ে থানা পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নাটমরিচাই গ্রামে আব্দুর রহিম এর ব্যবহৃত মোবাইল ফোন পুরাতন হওয়ায় সে নতুন ফোন ক্রয় করে। বাবার পুরাতন ফোনে বড় ছেলে মেহেদী হাসান ও ছোট ছেলে মইনুর হাসান(৭) গেম খেলতো।

প্রতিদিনের ন্যায় গত ১২ সেপ্টেম্বর রাতে মোবাইলে গেম খেলা নিয়ে মনোমানিল্যতা সৃষ্টি হয়। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায়র দিকে পরিবারের সকলের অজান্তের বাড়ির পার্শ্বে পরিত্যক্ত মুরগির ফার্মের ভিতরে সে গলায় রশি দিয় আত্ম হত্যা করে।

পরিবারের লোকজন টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসার জন্য নিয়ে এলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত্যু বলা ঘোষনা করেন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মৃত দেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

নিহতের পিতা আব্দুর রহিম বলেন, বড় ছেলে মেহেদী হাসান ও ছোট ছেলে মইনুর হাসান(৭) মোবাইল ফোনে গেম খেলা নিয়ে ছোট ভাইয়ের উপর অভিমান করে মেহেদী গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হাসমত উল্লাহ বলেন, খবর পেয়ে মৃত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি। ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!
%d bloggers like this: