নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার শীর্ষ সন্ত্রাসী ও বালু ব্যবসায়ী আখের আলীর (৩৮) গলাকাটা লাশ নন্দীগ্রামে উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি একাধিক হত্যা মামলার আসামি বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে আপন বড় ভাই রাশেদ, যুবলীগ নেতা মানিক ও বালু ব্যবসায়ী সবুজ হত্যা মামলা, ডাকাতির প্রস্তুতি, ছিনতাইসহ আরো ৭-৮টি মামলা রয়েছে।

সোমবার দুপুরে নন্দীগ্রাম পৌর এলাকার বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের পূর্বপাশে ওমরপুর কালিকাপুর মাঠের সতীশ চন্দ্র কারিগরি কলেজের পাশের একটি ধানক্ষেত থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পাশের জঙ্গল থেকে একটি মোবাইল ফোন, ১৫০সিসি কালো রঙের একটি পালসার মোটরসাইকেল (বগুড়া ল-১২-১৩৯৯) ও হেলমেড উদ্ধার করেছে পুলিশ। শীর্ষ সন্ত্রাসী আখের আলী বালু ব্যবসায়ী ছিলেন। তিনি বগুড়া সদরের সাবগ্রাম চান্দপাড়া এলাকার মোয়াজ্জেম হোসেনের ছেলে।

স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, সকাল ১০টার দিকে কৃষকেরা ধান চাষাবাদি জমির কাদা-পানিতে মরদেহ পড়ে থাকা অবস্থায় দেখেন। এ খবর পেয়ে শতশত মানুষ ঘটনাস্থলে ভিড় করে। পরে মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় এলাকায় থমথমেভাব বিরাজ করছে। মোবাইল ফোনের সুত্র ধরে নিহতের পরিচয় সনাক্ত করা হয়।

নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ধারনা করা হচ্ছে পরিকল্পিতভাবে তার ঘনিষ্ঠ কেউ ডেকে এনে গলাকেটে হত্যা করেছে। আখের আলীর নামে হত্যাসহ অসংখ্য মামলা রয়েছে। হত্যার সাথে জড়িতদের সনাক্ত করতে কাজ করছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Don`t copy text!
%d bloggers like this: