সিরাজগঞ্জের তাড়াশে পরকীয়া প্রেমিকসহ শাশুড়ি ও পুত্রবধূকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। মঙ্গলবার (২৮ জুন) দিবাগত রাতে উপজেলার দেশিগ্রাম ইউনিয়নের দেশিগ্রাম গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে থানায় প্রেমিকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেন পুত্রবধূ। 

তাড়াশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নূর আলম ও দেশিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গ্যানেন্দ্র নাথ বসাক ঢাকা পোস্টকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

ধর্ষণে অভিযুক্ত সুমন দেশিগ্রাম গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে ও তার সহযোগী সবুজ একই এলাকার বেরাজ আলীর ছেলে।

দেশিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান গ্যানেন্দ্র নাথ বসাক বলেন, সকালে ওই দুজন নারী নাকি বলেছেন তাদের জোর করে ঘরে তুলে দিয়ে বাইরে থেকে ঘরে তালা দিয়ে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে নাকি তারা আবার থানায় গিয়ে অবৈধ সম্পর্কের কথা স্বীকার করেছেন। 

সুমনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ প্রসঙ্গে ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, এলাকাবাসীর মুখে শুনেছি এই ছেলেরা নাকি মাঝেমধ্যেই আসত। এছাড়াও একই সময়ে শাশুড়ি ও পুত্রবধূর দুই ঘরে দুই ছেলের অবস্থান করাটা সন্দেহজনক। যদি অবৈধ সম্পর্ক থেকে থাকে তাহলে ধর্ষণের অভিযোগ আনাটা অনুচিত।

তাড়াশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নূর আলম ঢাকা পোস্টকে বলেন, এলাকাবাসী খবর দিলে তাদের চারজনকেই থানায় আনা হয়েছিল। পরবর্তীতে শাশুড়িকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও তার পুত্রবধূ সুমনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনেছেন। যার ফলে তাকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত সুমন ও তার সহযোগী সবুজকে আটক করা হয়েছে। আগামীকাল সকালে তাদের আদালতে পাঠানো হবে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.