শেফাইল উদ্দিন

কক্সবাজার সদরের চৌফলদণ্ডী হাই স্কুলের শিক্ষক মিটন কান্তি দের বিরুদ্ধে ছাত্রী ধর্ষণের মামলা দায়ের করা হয়েছে।ধর্ষিতা ছাত্রীর বাবা প্রদ্বীপ কান্তি দে বাদী হয়ে ঈদগাঁও থানায় এজাহার দায়ের করেন।
বুধবার (২৪ আগষ্ট) মামলা রেকর্ড করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন থানা অফিসার ইনচার্জ।

এজাহারে জানা যায়, চৌফলদণ্ডী হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক মিটন কান্তি দে ঈদগাঁও উপজেলার ইসলামাবাদ ইউনিয়নের হিন্দু পাড়া এলাকার সমির কান্তি দের ছেলে। সে দীর্ঘদিন ধরে নিজ বাড়ীতে বিভিন্ন ছাত্র ছাত্রীদের সন্ধ্যা থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত প্রাইভেট পড়াত। অন্যান্যদের সাথে পড়ত একই এলাকার প্রদীপ কান্তি দের এসএসসি পরীক্ষার্থী মেয়ে ( চদ্ম নাম)সপ্না। ছাত্রী সপ্নাকে সে বিভিন্ন সময় কারাপ প্রস্তাব দিয়ে আসছে। ১৬/০৭/২২ইং তার অন্যান্য ছাত্র ছাত্রীদের কৌশলে বিদায় করে সপ্নাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। রাজী না হলে এক পর্যায়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে লম্পট এ শিক্ষক। এ ঘটনায় ছাত্রী আত্মহত্যার চেষ্টা করে একধিক বার। একটি চক্র এ ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য আপোষ মিমাংসার কথা বলে কাল ক্ষেপন করে। পরে ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে ঈদগাঁও থানায় এজাহার দায়ের করেন। এ ব্যপারে বাদী প্রদ্বীপ কান্তি দে এজাহার দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, একটি চক্র আপোষ মিমাংসার চেষ্টা করে স্টাম্প নিয়ে ছিল। সে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে এবং পরে পালিয়ে যায়।
এ ব্যাপারে ঈদগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হালিমের সাথে কথা হলে জানান এ শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে অভিযোগ উঠা শিক্ষক মিটন কান্তি দে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন আপোষ মিমাংসার কথা চলছে। আপোষ হয়ে গেলে মামলা প্রত্যাহার করে নেয়া হবে।
অন্যদিকে একটি চক্র এই ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা এবং সাংবাদিকদের কথা বলে লম্পট শিক্ষকের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ ও প্রচার হয়েছে।এলাকাবাসী এই লম্পট শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Don`t copy text!