মোঃ রোকেয়া আক্তার, কিশোরগঞ্জ জেলা বিশেষ প্রতিনিধিঃ

 

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার লক্ষ্মীপুর কোনার বাড়ি গ্রামের কতিপয় দুষ্কৃতিকারীদের কর্তৃক লক্ষ্মীপুর বাজার হতে মাতুয়ারকান্দা “প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান সড়ক” কেটে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার প্রতিবাদে ও বিচার দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। রোববার (১৯জুন) বিকালে উপজেলার মাতুয়ারকান্দা গ্রামের মো. বকুল মিয়ার বাড়ি থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের করে তারা। মিছিলে শিক্ষার্থীদের সাথে ৫ শতাধিক নারী পুরুষও অংশগ্রহন করে।

 

এর আগে বকুল মিয়ার বাড়ির উঠানে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে মাতুয়ারকান্দা গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. খলিলুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল গফুর মাষ্টার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নজরুল ইসলাম, আব্দুর রাশিদ ও শাহ আলম বলেন, দীর্ঘ ৫০ বছর অপেক্ষার পর কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইয়াছির মিয়া লক্ষ্মীপুর বাজার হতে মাতুয়ারকান্দা পর্যন্ত “প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান সড়ক” নামকরণ করে একটি রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ হাতে নিয়ে গত ২০১৯ সালের ২৩ নভেম্বর জিরা নদীর পশ্চিম পাড় ঘেঁষে রাস্তাটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। পরে সরকারি ভাবে টিআর, কাবিখা, অতি দরিদ্রদের কর্মসংস্থান কর্মসূচী ও এলজিএসপি-৩ এবং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইয়াছির মিয়ার ব্যক্তিগত অর্থায়নে পানি নিস্কাসনের ৫টি কালভার্টসহ রাস্তাটি নির্মাণ করে মাতুয়ারকান্দাবাসীর বহুদিনের স্বপ্ন পূরন করে দেন তিনি। রাস্তা নির্মাণের তিন মাস পর স্থানীয় অপ-রাজনীতির কোন্দলে কতিপয় কিছু লোকের ইন্দনে দফায় দফায় রাস্তাটি ভেঙ্গে ফেলে দেয় কোনার বাড়ির লোকজন। এ নিয়ে দফায় দফায় সংঘর্ষও হয়। সংঘর্ষের পর প্রায় এক বছর যাবৎ রাস্তা নিয়ে কোন প্রকার সমস্যা হয়নি। হঠাৎ করে গত শনিবার (১৭জুন) দিবাগত রাতের যেকোন সময় কোনার বাড়ি গ্রামে কতিপয় কিছু দুষ্কৃতিকারী লোক রাস্তার বিভিন্ন জায়গা কেটে মাটি সরিয়ে নেওয়ার ফলে মাতুয়ারকান্দাবাসীর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এর ফলে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় বিঘ্ন ঘটছে। মারাত্মক রোগীদের হাসপাতালে নেওয়া সম্ভব হচ্ছেনা। এতে তারা চরম দুর্ভোগে রয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করে অচিরে রাস্তাটি সংস্কারের দাবী জানান স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপন ও মাননী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট। অচিরেই রাস্তাটি সংস্কার না হলে এলাকার মানুষ জনদুর্ভোগ থেকে মুক্তি পাবেনা বলেও জানান তারা। এসময় এলাকার ৫ শতাধিক নারী পুরুষ ও শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.