বিনোদন ডেস্কঃ

 

ঈদুল ফিতরে মুক্তি পায় ‘শান’। মুক্তির পরপরই আলোচনায় আসে ছবিটি। ঢাকাসহ মুক্তি পাওয়া দেশের সব কটা হলেই দর্শক অংশগ্রহণ দেখা যায় ছবিটিতে। মুক্তির পাঁচ সপ্তাহ এসে এখনো সিনেপ্লেক্স ব্লকবাস্টারসহ দেশের বেশ কিছু হলে চলছে ছবিটি।

 

সিনেমা হলের বাইরে ছবির প্রযোজনা সংস্থা ফিল্মম্যান ‘শান’কে নিয়ে এবার ভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। দেশের আনাচে–কানাচে দর্শকের কাছে পৌঁছে চায় ছবিটি। যাঁরা হলে গিয়ে ‘শান’ উপভোগ করতে পারেননি বা যেসব অঞ্চলে সিনেমা হল নেই, বিকল্প ব্যবস্থায় সেই সব অঞ্চলে বড় পর্দায় ছবিটি মুক্তির ব্যবস্থা করা করছেন তাঁরা।

ছবির পরিচালক এম রাহিম জানালেন, গত বৃহস্পতিবার থেকে এই প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। বৃহস্পতি ও আজ শুক্রবার রাঙামাটির ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তন ও ভেদভেদী জাদুঘরে বিকেল পাঁচটা ও সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় শো দেখানো হয়েছে।

 

এম রাহিম বলেন, ‘এভাবে দেখানো হলে সিনেমা হলের অভাবে যাঁরা ছবিটি দেখার সুযোগ পাচ্ছেন না, তাঁরাও দেখতে পাবেন। তা ছাড়া সারা দেশে নিতে পারলে টিকিটের টাকা থেকে আস্তে আস্তে একটা সময় ছবির বিনিয়োগও উঠে আসা সম্ভব হবে।’

জানা গেছে ৫ ও ৬ জুন খাগড়াছড়ির নারানখাইয়া উপজেলা পরিষদ এলাকার খাগড়াছড়ি ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বিকেল পাঁচটা ও সন্ধ্যা সাতটায় দুটি করে শো প্রদর্শন হবে।

 

ছবির কাহিনিকার, চিত্রনাট্যকার ও ক্রিয়েটিভ প্রধান আজাদ খান বলেন, ‘বাংলাদেশের সব জায়গায় ছবিটি নিতে চাই। সরকার দেশের অনেক উপজেলায় আধুনিক মিলনায়তন নির্মাণ করেছে। সেখানকার সাউন্ড সিস্টেমও ভালো। যেসব জায়গায় হল নেই, সেসব জায়গায় এই সব মিলনায়তনে ছবিটি দেখার ব্যবস্থা করছি আমরা।’

 

আজাদ খান আরও বলেন, ‘ছবিটি মুক্তির পর দর্শকের ভালো সাড়া পেয়েছি। এতে পরবর্তী সিনেমা নির্মাণে আগ্রহী করেছে আমাদের। আমরা পার্বত্য অঞ্চলের দর্শকদের জন্য দেখার ব্যবস্থা করেছি। এভাবে পর্যায়ক্রমে সারা দেশ ঘুরে ঘুরে সব অঞ্চলের সিনেমাপ্রেমী দর্শকের কাছে সিনেমাটি পৌঁছে দিতে চাই। তা ছাড়া ছবিটির গল্পের বাস্তবতার কারণে বাংলাদেশের সব অঞ্চলের মানুষের ছবিটি দেখা উচিত।’

মানব পাচারের ওপর অ্যাকশনধর্মী এই ছবির আরেক চিত্রনাট্যকার নাজিম উদ দৌলা। ‘শান’-এ অভিনয় করেছেন চম্পা, অরুণা বিশ্বাস, সিয়াম আহমেদ, পূজা চেরি, তাসকিন রহমান প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.