এম শফিউল আলম আজাদ, ঈদগাঁওঃ
কক্সবাজারের নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলার ঈদগাঁও ইউনিয়নের মাইজ পাড়ার শত বছরের পানি চলাচলের খাল ও জন চলাচলের রাস্তা দখল করার কারণে সামান্য বৃষ্টিতে জন ও যান চলাচলের রাস্তা হাঁটু পানিতে পরিনতি হয়েছে। যে যেদিকে পারে ইচ্ছে মতো দখলে নিচ্ছে বহু বছরের পুরনো খাল আর যান চলাচলের সড়কটি। এভাবে চলতে থাকলে চরম দুর্ভোগে পড়বে কয়েকটি গ্রামের লোকজন। উপজেলার ঈদগাঁও ইউনিয়নের ২/৩ নম্বর ওয়ার্ড উত্তর মাইজ পাড়া, মধ্যম মাইজ পাড়া, দক্ষিণ মাইজ পাড়া এলাকায় চলছে শুধু এ পানি চলাচলের খাল ও রাস্তা দখলের প্রতিযোগিতা।
আজ সকাল বৃষ্টিতে সরেজমিনে দেখা যায়, বংকিম বাজার হয়ে, ডাক্তার ভোলা বাবুর বাড়ী সংলগ্ন ঈদগাঁও মসজিদের দক্ষিণে রাস্তার উপর বাউন্ডারি দিয়ে ঘর নির্মাণের প্রতিযোগিতা। উত্তর মাইজ পাড়া আবদু রহিম সওদাগরের দোকানের সামনের দখল করে মানুষের ঘরবাড়িতে পরিনত হচ্ছে। উত্তর মাইজ পাড়া খাল ভরাট করে রাস্তার উপর দোকান ও বাড়ি ঘর নির্মান করার কারণে পানি চলাচলের খাল ও সড়কের পরিধি ছোট হয়ে আসছে ক্রমান্বয়ে। চলাচলে ব্যাঘাত ঘটছে গ্রামের মানুষের। এলাকাবাসী জানায়, খালটি জবর-দখলে নিষেধ করলে কোন প্রকার কর্ণপাত করছে না জড়িতরা। বরং প্রভাবশালী লোকজনের সহযোগিতায় এ কার্যক্রম অব্যাহত। কেউ বাধা বা প্রতিবাদ করলে উল্টো গালিগালাজ হামলা ও মারধরের হুমকি দিচ্ছে বলেও অভিযোগ অনেকের। এ ভরা খালের বিষয় নিয়ে একজন সহকারী রেঞ্জ কর্মকর্তা জনাব, মোহাম্মদ আলীর কাছে জানতে চাইলে, তিনি বলেন, পানি চলাচলের এ খালটি সরকারী গােপাটের পাসে নির্মিত। যুগযুগ ধরে জনসাধারণ এটি ব্যবহার করে আসছে। এটি দিয়ে স্থানীয় কয়েকটি গ্রামের বৃষ্টির পানি যাতায়াত করতো । এ এলাকার অনেকেই সড়কের অংশ বা, পানি চলাচলের খাল দখল করে অবৈধ ভাবে মাটি ভরাট করে বাড়ি-ঘর ও দোকান নির্মাণ করেছে। বর্তমানে অনেকে পানি চলাচলের খাল ও চলাচলের রাস্তার উপর বাউন্ডারি দিয়ে ঘর ও দোকান করার কারনে, সামান্য বৃষ্টিতেও রাস্তার উপর হাঁটু পানি হয়ে পুরো রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে এবং এ অবৈধ দখলবাজদের কারণে সামান্য বৃষ্টি হলেও রাস্তার উপর পানি জমে কাদা-জলে জনগণকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। স্থানীয় একজন অবসরপ্রাপ্ত প্রবিন শিক্ষাক জনাব শামসুল আলম বলেন, আমাদের পূর্বপুরুষের আমল থেকেই এ সড়ক দিয়ে ছোটখাট গাড়ি ও জনগণ চলাচল করে আসছে। আমাদের বংকিম বাজার উত্তর মাইজ পাড়া হ’য়ে মেহের ঘোনা রেঞ্জ অফিস পর্যন্ত লেঃ কর্ণেল (অব) ফোরকান আহমেদ সড়কটি আমাদের একমাত্র চলাচলের রাস্তা। এই জনবহুল রাস্তা ও পানি চলাচলের খালটি যদি এভাবে বন্ধ হয়ে যায় চরম দুর্ভোগে পড়বে কয়েক গ্রামের হাজার হাজার লোকজন। এলাকাবাসীর দাবী। যারা এই ঐতিহ্যময় মাইজ পাড়ার পানি চলাচলের এক মাত্র ভরা খাল ও এলাকার একমাত্র চলাচলের রাস্তা অবৈধ ভাবে দখল করে দোকান পাট ঘরবাড়ি বা খেতখামার করে আসছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে রাস্তার সরকারী গোপাট ও ভরাট কৃত খালটি বর্ষা মৌসুমের আগেই পুনরুদ্ধার করে, পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জনাব, লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অবঃ) ফোরকান আহমেদ মহোদয় ও ঈদগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ছৈয়দ আলমের প্রতি বিশেষ অনুরোধ জানান এলাকাবাসী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.