নিজস্ব প্রতিবেদক

কক্সবাজারের ঈদগাঁও উপজেলার ডাকাত সর্দার অস্ত্র মামলাসহ ডজন মামলার আসামি হাসান আবার ও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। এ ডাকাত সর্দার এলাকায় বিশাল বাহিনী গঠন করে বীরদর্পে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে।তার অত্যাচারে এলাকার লোকজন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে বিভিন্ন অপরাধ সংঘটিত করেছে বলে জানান ভুক্তভোগীরা।
জানা যায়, ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ইউচুপেরখীল এলাকার বার্মাইয়া আলী জাবেদের ছেলে মোঃ হাসান প্রকাশ ডাকাত হাসান এলাকায় বিশাল বাহিনী গঠন করে বিভিন্ন জায়গায় ডাকাতি,খুন, ছিনতাই, চাঁদাবাজি সহ বিভিন্ন অপরাধ সংঘটিত করে আসছে। তার দাবিকৃত চাঁদা না দেয়ায় তার হুমকি ধমকিতে অনেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। আবার অনেকের ঘর বাড়ি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান জবর দখল করে নেয়ার মত ও গুরুত্বর অভিযোগ রয়েছে এ ডাকাত সর্দার হাসানের বিরুদ্ধে। হাসান ডাকাতের বিরুদ্ধে এসটি ২১৫৪/ ২০১৫ ইং ,এসটি ১০৯২/২০১৬ইং,জি আর ৩৫৩/২০০৬ইং সদর, অস্ত্র মামলা,জি আর ১৬৯/২০১২ইং সদর,ধারা ৩৯৪দ,বি,জি আর ৭৭৮/২০১৩ইংসদর,মানব পাচার,জি আর ২০১৫ /২০১৫ইং সদর ইত্যাদি মামলাসহ বিভিন্ন মামলা আদালতে চলমান রয়েছে। তার দাবিকৃত চাঁদা না দেয়ায় ইউচুপেরখীল এলাকার নসরত আলীর ছেলে শের আলীর একটি অটো রাইস মিল দুটি দোকান এবং চাষী জমি জবর দখল করে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এলাকার লোকজনের দাবি সরেজমিনে তদন্ত করলে সত্যতা মিলবে। ইউচুপেরখীল এলাকার শের আলী জানান, হাসান ডাকাত তার কাছ থেকে ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে দাবিকৃত চাঁদা না দেয়ায় তাদের দুইটি দোকান, একটি রাইচমিল ও চাষের জমি জবর দখল করে নেয় এবং চাঁদা না দেয়ায় এলাকার বিভিন্ন লোকজন তার অত্যচার নির্যাতনের শিকার সময়।
স্থানীয় মেম্বার দিদারুল ইসলামের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। চেয়ারম্যান নুর ছিদ্দিকের সাথে কথা হলে তিনি ডাকাত হাসান ডাকাতির সাথে জড়িত এবং সম্প্রতি এলাকার লোকজনের জায়গা ও দোকান দখলের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এ ব্যাপারে অভিযোগ উঠা ডাকাত হাসানের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করে সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।
ঈদগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হালিমের সাথে কথা হলে জানান তাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল সম্ভবত সে জামিনে আসছে। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।এলাকাবাসী ডাকাত সর্দার হাসানকে গ্রেফতার করে অস্ত্র উদ্ধারের দাবি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই মাত্র পাওয়া খবর

চাকমারকুল মিয়াজীপাড়ায় মিনিবার ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা সম্পন্ন। মোহাম্মদ নোমান রামু কক্সবাজার প্রতিনিধি। শুক্রবার (২৭ জানুয়ারী ,২০২৩ইং) রাত ৮.০০ টায় রামু উপজেলার চাকমারকুল ইউনিয়নের মিয়াজীপাড়ায় ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান ব্যাপক দর্শক সমাগমের মধ্য দিয়ে বহুল প্রশংসিত এবং প্রত্যাশিত সী-গ্রীন স্পোর্টিং ক্লাব কর্তৃক আয়োজিত মিনি বার ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০২২-২৩ এর ফাইনালখেলা সম্পন্ন হয়েছে। উক্ত ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন কলঘর বাজার সিনিয়র ফুটবল দল বনাম মালুম ঘাট ফুটবল দল। মাঠে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচে মালুম ঘাট ফুটবল দলকে ১-০ গোলে পরাজিত করে কলঘর বাজার সিনিয়র ফুটবল দল চ্যাম্পিয়ন হয়।উক্ত খেলায় সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন কলঘর বাজার সিনিয়র ফুটবল দলের খেলোয়াড় আয়াত উল্লাহ। খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে ট্রফি সহ নগদ ৫০,০০০ টাকা,পরাজিতদের হাতে ট্রফিসহ নগদ ২০০০০ টাকা পুরস্কার তুলে দেন চাকমারকুল ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জনাব মুফিদুল আলম (মুফিদ)। সী-গ্রীন স্পোর্টিং ক্লাবের উপদেষ্টা জনাব সরওয়ার আলমের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাকমারকুল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মেম্বার জনাব সাহাব উদ্দিন, ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার জনাব বেলাল উদ্দীন শাহীন, ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার জনাব নুরুল ইসলাম নুরু ১,২,৩ ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার জনান্বা আল মর্জিনা, ৪,৫,৬নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার গুলজার বেগম ৭,৮,৯১নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার মরিয়ম বেগম,সমাজ সেবক আমির হোসেন সিকদার, যুব নেতা সালাহ উদ্দীন জনাব সাইফুল ইসলামসহ প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুফিদুল আলম বলেন, যুব সমাজকে খেলাধূলার প্রতি আগ্রহী করে তাদেরকে রক্ষা করতে হবে। যুবসমাজকে রক্ষা করতে পারে একমাত্র ক্রীড়া জগত। তাই বেশি বেশি করে খেলাধূলার আয়োজন করতে হবে। উক্ত টুর্ণামেন্টের পরিচালনায় ছিলেন জানে আলম,ন্হুমায়ুন বিন কাসেম হিরু,জামাল হোসেন,কায়সার,জামশেদ,আশেক,হামিদুর রহমান,মনছুর,সোহেল,মনজুর,জাহেদুল ইসলাম,নুরুসহ প্রমুখ

Don`t copy text!
%d bloggers like this: